মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

বিভাগীয় কমিশনার, রংপুর

 

 

পরিচিতি

জনাব মো: সাবিরুল ইসলাম ২৭ জুলাই ২০২২ তারিখে বিভাগীয় কমিশনার, রংপুর হিসেবে যোগদান করেন। এই পদে যোগদানের পূর্বে তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে অতিরিক্তি সচিব (জেলা ও মাঠ প্রশাসন) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সরকারের নীতি নির্ধারণী বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পর্যায় এবং মাঠ প্রশাসনে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন

জনাব মো: সাবিরুল ইসলাম পাবনা সদর উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামে ০৮ জুলাই ১৯৭১ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ভাষা সংগ্রামী আমিনুল ইসলাম বাদশা এবং মাতা নীলুফা ইসলাম। সরকার ভাষা সংগ্রামে অবদানের জন্য ২০২০ সালে আমিনুল ইসলাম বাদশাকে মরণোত্তর একুশে পদকে ভূষিত করে।

জনাব মো: সাবিরুল ইসলাম বিসিএস ১৫ ব্যাচের একজন কর্মকর্তা। তিনি ১৯৯৫ সালের ১৫ নভেম্বর বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে সহকারী কমিশনার পদে চাকরিতে যোগদান করেন। সহকারী কমিশনার হিসেবে তিনি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, মাগুড়া, নড়াইল ও মুন্সিগঞ্জ জেলায় কর্মরত ছিলেন। পরে তিনি সিনিয়র সহকারী কমিশনার হিসেবে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, ঢাকা, ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড, ঢাকা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া ও সিলেট জেলার জৈন্তাপুর উপজেলায় কর্মরত ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি সিনিয়র সহকারী সচিব ও উপসচিব হিসেবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, উপ-প্রকল্প পরিচালক, আরবান প্রাইমারী হেলথ কেয়ার প্রজেক্ট (PH-2), জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে সুনামগঞ্জ এবং উপ-সচিব, যুগ্ম সচিব এবং অতিরিক্ত সচিব হিসেবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন

তিনি দাপ্তরিক প্রয়োজনে ভারত, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, দক্ষিণ কোরিয়া, চীন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, ফ্রান্স, ইতালি ও সুইজার‍ল্যান্ড সফর করেছেন।

মো: সাবিরুল ইসলাম জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় হতে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে বিএ (অনার্স) ডিগ্রী অর্জন করেন এবং নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ হতে পাবলিক পলিসি এন্ড ম্যানেজমেন্ট এ মাষ্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি TRNG PROG ON ENTREPRENEURSHIP DEV. USING THE BLUE OCEAN STRATEGY, LEADERSHIP & MANAGEMENT RELATED TO URBAN PRIMARY HEALTH CARE SERVICES, URBAN PRIMARY HEALTH CARE STUDY TOUR ইত্যাদি বৈদেশিক প্রশিক্ষণ কোর্স সফলতার সাথে সম্পন্ন করেন।

২০১৭ সালে ভয়াবহ বন্যার পরে তিনি সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক নিযুক্ত হন। তিনি সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সুনামগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সমন্বয়ে গঠিত পিআইসির মাধ্যমে মাত্র আড়াই মাসে ১৪০০ কি.মি. হাওড় রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করেন। ফলশ্রুতিতে হাওড়াঞ্চলে ধানের উৎপাদন নিশ্চিত হয় ও তা বহুগুন বৃদ্ধি পায় যা এখন পর্যন্ত অব্যাহত অছে এছাড়া মাঠ পর্যায়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিকাশে সুনামগঞ্জ জেলার ইউনিয়ন পরিষদসমূহে ‘মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর’ নির্মাণ করে জনসেবায় অসামান্য অবদানের জন্য ২০১৮ সালে তিনি জনপ্রশাসন পদক লাভ করেন।

তাঁর স্ত্রী মিজ লুবনা আফরোজ একজন চাকুরীজীবীপারিবারিক জীবনে তিনি এক পুত্র সন্তান আযওয়াদ ফাইরাজ ইসলাম এর জনক।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter